March 07, 2017

ফেইসবুক এর যুগে আর্টিস্টদের সংকট


আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি। কারণ আমি যখন কার্টুন ও বুক ইলাস্ট্রেশন শুরু করি তখন ইন্টারনেট ছিলো না। এটা আরেক অর্থে ভয়ানক দুর্ভাগ্যও বটে, কারণ আমার শিখতে হয়েছে অনেক কষ্ট করে। রেফারেন্স বই নাই, ভিডিও টিউটোরিয়াল নাই, তার চেয়ে বড় কথা দুই তিন দিনে একেবারে বেসিক এনাটমি বা লাইট এন্ড শেড বুঝিয়ে দেবে এমন কোন কাছের বড়ো ভাই নাই। আমি আঁকা শুরু করি ট্রেসিং পেপারে ড্রাফটিং পেন দিয়ে। সেটা সাধারণত ক্যামেরা প্রজেকশন করে ছবি তোলা হত, তারপরে যেত পেস্টিং রুম এ। এখন যারা আঁকা শুরু করেছেন তারা হয়ত এটা কতটা দীর্ঘ প্রক্রিয়া সেটা বুঝবেন না। 

আমি তাহলে কেন নিজেকে সৌভাগ্যবান কেন বলছি? কারণ যখন আমি শেখা শুরু করি আমি তখন নিজের জন্যেই শিখতে থাকি। সেটা হুট করে কোথাও 'আপ' করে কে কী ভাবলো বা বলল সেটা জানার উপায় ছিলো না, তাই সেটা নিয়ে মাথাও ঘামানো হত না। কিন্তু আমি এই সময়ে শুরু করলে অবধারিতভাবেই হয়ত আমার একটা বড় উদ্দেশ্য হত কিছু একটা এঁকে কোন সোশাল মিডিয়াতে তুলে কে কয়টা লাইক দিলো বা কতটা ভাল বল্ল সেটা দেখা। এর ফলে আসল কাজে মনোযোগ কমে যাবার কথা।

বেশ কিছু তরুণ আঁকিয়েদের দেখছি তারা নিজের জন্যে আঁকার চাইতে ফেইসবুক এর জন্যে আঁকতে বেশী আগ্রহী। এবং এর ফলে নিজেরা একটা ফাঁদে পড়ে যাচ্ছে তারা। সেটা হল- কোন জিনিসটা মানুষ বেশী 'খাবে'। কোন জিনিসটা আমি আঁকতে চাই সেটার বদলে যখন কোনটা ট্রেন্ডি বা কোনটা মানুষ বেশী 'লাইক' দেবে এটা ভেবে আঁকা শুরু করে কেউ, তখনই কিন্তু তার আঁকিয়ে সত্ত্বার মৃত্যু ঘটতে শুরু করে। দেখা যাবে এক সময় আমি কেন আঁকতাম, বা আমি আসলে কী আঁকতে চেয়েছিলাম সেটা সে নিজেই ভুলে যায়। এতে আর কারো সমস্যা হয় না, সমস্যা হয় সেই আর্টিস্টের নিজের। আমি দিব্যি দিয়ে বলতে পারছি না যে এই সময়ে আমি আঁকা শুরু করলে আমিও এই কাজ করতাম না। হয়ত সেই অনেক আগে যখন ইন্টারনেট এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিক লাইক কামানোর যুগের আগে কাজ শুরু করায় আমি এর মধ্যে পড়িনি।

এই সংকট শুধু আর্টিস্টদের না, লেখকদের এই সমস্যা বরং আরো বেশি। কিছু একটা আঁকলে সেটা সময় নিয়ে এঁকে স্ক্যান করে বা ছবি তুলে পোস্ট করতে হয়। কিন্তু লিখতে গেলে শুধু নিজের মোবাইল বা পিসি থাকলেই চলে। অনেক দারুণ সম্ভাবনাময় লেখক যার হয়ত বেশ ভাল বড়ো কলেবরে কোন বই লেখার কথা ছিলো, হয়ত তার লেখার কথা ছিলো বিশ্লেষণধর্মী কোন রাজনৈতিক কলাম, তার এই মুহূর্তে পরিচয় হয়ে গেছে ফেইসবুক সেলিব্রেটি। এটা তার নিজের জন্যে বিধ্বংসী। কারণ প্রথমে তার লেখা ছোট হওয়া শুরু করবে, যাতে মানুষ ফেইসবুক স্ক্রল করতে করতেই সেটা পড়ে ফেলতে পারে, আর তারপরে দেখতে দেখতে লাইক এর প্রত্যাশায় তার নিজের ভাষার সাথে যায় না এমন কিছু স্ল্যাং সে লেখা শুরু করবে। দুঃখের ব্যাপার হল দিন শেষে এই ফেইসবুক কিন্তু কোন প্রকাশনা না, এটা অনেকটা ঘরোয়া আড্ডায় বলা কথাবার্তার মত। সেটা দশ বছর পরে কোন ডকুমেন্ট হিসেবে বিবেচনায় আসবে না। তাই যদি লিখতেই হয় সেটা যত ছোট পত্রিকা বা বইয়ের মধ্যেই হোক না কেন- সেখানে লেখাই ভাল। তার পরে চাইল সেটার কথা ফেইসবুক এ জানানো যেতে পারে।  (অথবা ব্যক্তিগত ব্লগে লিখে পরে শেয়ার করা ভাল, অন্তত লেখার কলেবর বাড়বে, যে পড়ার সে পড়বে, সবার সব পড়ার দরকারও নেই)

এই দুষ্টচক্র থেকে বের হওয়া সহজ না, কিন্তু যারা আসলে ভাল শিল্পী হতে চান বা ভাল লেখক হতে চান তাদের এই চক্র থেকে যে কোন ভাবে হোক বের হওয়া দরকার। নাইলে দশ বছর পর দেখবেন আপনি একটা খুবই অল্প সংখ্যক এবং একই রকম চিন্তার এক এক দল মানুষের জন্যেই কাজ করছেন, এর বাইরে আর কেউ আপনার চিন্তা ভাবনার কথা জানেই না, আপনার মতের সাথে একমত নয় এমন মানুষদেরকেও কিন্তু আপনার চাই, তারা আপনার ফ্রেন্ড লিস্ট এ নেই, আছে বাস্তব পৃথিবীতে। এই চক্র থেকে মুক্ত হবার কিছু দাওয়াই হতে পারে এমন - 
(আমি নিজে মহামানব নই, তাই আমি এইটুকু নিজে মেনে চলার চেষ্টা করি)-

১. আঁকা/ লেখার সময় ফেইসবুকের কে কী মন্তব্য করবে সেটা না ভেবে আপনার নিজের পাঠক বা দর্শক হিসেবে সেটা  কতটা ভালো লাগবে সেটা ভাবুন।

২. চেষ্টা করুন আধখেঁচড়া কোন কিছু করে ফেইসবুক এ না দিয়ে সম্পূর্ণ করে সেটা আগে কোন মূলধারার প্রকাশনায় দিতে। পত্রিকা বা বইয়ের ছাপা হওয়া অংশ পরে ফেইসবুক এ দিতে কোন সমস্যা নেই। 

৩. ফেইসবুকে অনেক অচেনা মানুষও বাজে- অর্থহীন মন্তব্য করবে, সব মন্তব্যের জবাব দেবার দরকার নেই, এমনকি কে কী বলছে সেটা কম দেখাই ভাল। নাইলে পরের বার আপনি মনে মনে না চাইলেও সেই সমালোচকের কথা ভেবে লেখা বা আঁকা সেন্সর করতে থাকবেন।

৪. কাজ ভাল করুন, মূলধারায় দিন। ভাল কাজ নিজেই সোশাল মিডিয়াতে চলে আসবে, আপনাকে পোস্ট করতে হবে না।

৫. শুধু নিজের  প্রচার না করে অন্যের ভাল কাজেরও করুন, যার কাজ আপনার ভাল লাগে। নিজের যে খবরটা আসলেই অনেক গুরুত্বপুর্ণ মনে হবে সেটা দেয়া যেতে পারে।

4 comments:

  1. সত্যি ভাইয়া অনেক দিন ধরে এ ধরনের একটা আর্টিকেল চাচ্ছিলাম। প্রথম প্রথম আমি এই কাজটি করতাম। মাস খানেক হল এটা বন্ধ করেছি। আমার অনেক আকা আছে বাট আমি তা পোস্ট করি না। ব্লগে পোস্ট করি। এই ধরনের একটি আর্টিকেলের জন্য আপনাকে অনেক অভিনন্দন। ভাল থাকবেন।

    ReplyDelete
  2. ভাই অনেক দারুন আর উপকারি আর্টিকেল।

    ReplyDelete
  3. এসব আঁকিয়েদের না দেখে একটা ফিগার ড্রয়িং বা স্টোরিবোর্ড/কমিকের কোনো প্যানেলের খসড়া আঁকতে দিলে যাগায় বসে হেগে দিবে...

    ReplyDelete
    Replies
    1. Tao Tara 200 + like Pai , comic book panel dile 20 like o urge na

      Delete