August 19, 2017

পেইন্ট ওভার: কালার টিপস

আবারো আঁকান্তিসের একটা পোস্ট নিয়ে পেইন্ট ওভার, কালার নিয়ে টিপস।

আঁকান্তিস পোস্টের ড্র ওভার

আঁকান্তিসের আরেকটা পোস্টের ড্র ওভার এডিট করলাম।



প্রথমে সেই বেসিক ফর্ম গুলি এঁকে নেয়া। এটা অনেকেই পাত্তা দেই না,
অনেক সহজ মনে করি। কিন্তু এটাই মূল ভিত্তি। একটা বিল্ডিঙের পিলার বানানোর মত।
দেখতে সাধারণ ও সহজ, কিন্তু সেটার ওপরেই পুরো বিল্ডিং ভর করে দাঁড়াবে।

এবারে একটা টিপ। কাঁধের লাইন আর কোমরের লাইন, এই দুটো লাইন
এক টানে এঁকে নিলে হাত পা কোনটা কোনদিকে কোন জায়গা থেকে নামবে
সেটা ফিক্স করে নেয়া যায়। নাইলে শেষ উলটাপালটা লেগে যায়।

সেই লাইন বরাবর এবারে হাত পা শুরু 

আরেকটু ডিটেইল, হাত পা আঁকা।

এবারে সবার জানা সেই সিলিন্ডার, মানে হাত পা শরীর সবই সাধারণ পাইপের মত করে এঁকে নেয়া। আর কোনটা কোন দিকে মানে কোন হাত সামনের দিকে কোন পা পিছনের দিকে, সেটা ওপরে কিছু রিঙের মত লাইন টেনে নিজে বুঝে নেয়া।

একটু ক্লিন করে নেয়া, কাইন্ড অফ পেন্সিলিং।

পছন্দমতন ইংক, কোথাও কোন গোঁজামিল নেই, জানি যে কোন পার্ট কিভাবে কোথায় শুরু কোথায় শেষ। 

এবং কালার

এই ড্রয়িংটা এনাটমির প্রিন্সিপাল ফলো করে করা হলেও যে কোন কার্টুনিশ আঁকাতেও এটা একইভাবে এই কয়েক ধাপেই করা ভাল, সবটা বেশ আয়ত্তে থাকে।

আশা করি ছোট এই পোস্ট টা কাজে আসবে। এ ছাড়া অন্য কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টে দিতে পারেন।

August 07, 2017

সুলতান ক্যারিকেচার

আঁকান্তিস গ্রুপের ক্যারিকেচার চ্যালেঞ্জের জন্যে আঁকা শিল্পী এস. এম. সুলতানের ক্যারিকেচার।  এই লোকটা অন্যরকম ছিল।

আঁকান্তিস পোস্ট ফিডব্যাক

এ বছর কাজের চাপে একটু 'ঠেসান্তিস' পরিস্থিতিতে আছি। আঁকান্তিস গ্রুপেও বলতে গেলে ঢোকা হয় না। অনেক দিন পর একটু অবসর পাওয়াতে মনে হল কোন একটা পোস্টের ফিডব্যাক দেয়া যায় কিনা। সত্যি বলতে আজকাল এত দারুণ দারুণ আঁকিয়ে চারিদিকে দেখতে পাই ফিডব্যাক দেবার বদলে বরং শেখার চেষ্টা করি বেশী। যাই হোক, সিফাতুল আলম নামের একজন সেধে ফিডব্যাক চেয়েছে একটা পোস্ট নিয়ে। আমার মনে হয় এই একটা ফিডব্যাক পোস্ট অনেককেই আঁকাআঁকির ধাপগুলি বুঝতে সাহায্য করবে। দেখা যাক, ক্যাপশনেই দেবার চেষ্টা করি।
সেই আদি ও অকৃত্রিম 'ভঙ্গী' বা যেশ্চার। মানে খুব সহজে একেবারে রাফলি ক্যারেক্টারের দাঁড়ানোর ভঙ্গীটা এঁকে নেয়া। এই সময়ে টিপস হল পেন্সিল, চারকোল বা ডিজিটাল পেন যা-ই হাতে থাকুক না কেন খুব আলতো করে ধরে লুজলি আঁকা। এখানে যাচ্ছেতাই হোক না সব লাইন, কোন সমস্যা নেই।
এই ক্ষেত্রে একটা ব্যাপার, যদিও এটা কিছুটা 'এডভান্সড' জিনিস। কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেটা হল ফর্মগুলির একটার সাথে আরেকটার সম্পর্ক যেন খুব রিদমিক হয়। যেমন অনেকটা গাছের এক ডালের সাথে আরেক ডালের হয়, একটা গাছের একেক ডাল একেকরকম হলেও কেন যেন কোথাও অসামঞ্জস্য লাগেনা। এটা ড্রয়িং এ আনা খুব দরকার।
এবারে একেবারে অংক মিলানোর মত সেই আগে আঁকা যেশ্চারের অপর একটা একটা করে ফর্ম- মানে মাথার জন্যে দিলাম গোল্লা, হাতের জন্যে সিলিন্ডার- এভাবে একটা একটা করে সব ফর্ম ডিফাইন করে নেয়া।
এর পর থেকে আসলে কাজ সহজ। ফাইনাল কাজ- ইংকিং। আগের আঁকার ওপরই লাইন ফাইনাল করে গাঢ় করা।
এবারে মনে মনে একটা আলোর উৎস ধরে নিয়ে তার উলটো দিকে বেসিক শ্যাডোগুলি ফেলা।


রং ইচ্ছামতন। কালার হুইলটা একটু বুঝে নিয়ে রঙ করা ভাল। আর সব ডার্ক না করে কিছু জায়গা ছেড়ে দেয়া ভাল।