October 04, 2012

হাড্ডিগুড্ডি-১

মানুষের ফিগার 'ঠিকভাবে' যারা আঁকতে চান এবং সেই উদ্দেশ্যে যারা কোন না কোন এনাটমির সফট বা হার্ড ভার্সনের  বই খুলে বসেছিলেন এই ভেবে যে- এইবার যাবি কই- তারা নিশ্চিত দু এক পাতা উল্টানোর পরেই দীর্ঘশ্বাস ফেলে সেই চেষ্টা বাদ দিয়েছেন? কারণ সেই বই অসম্ভব দূর্বোধ্য ও জটিল সব মাসকুলেচারে একাকার। দেখতে ভাল লাগে কিন্তু ওই বই কপি করতে হলে রবার্ট ব্রুসের ধৈর্য দরকার (সেটা থাকলে আর আঁকতে আসছি কেন?)। যাই হোক, অন্যদের কথা জানি না কিন্তু আমি এই ধরনের একটা বিতিকিচ্ছিরি অবস্থার মধ্য দিয়ে গেছি। ইন্টারনেট যুগের আগে তো চাইলেও তেমন কোন বইয়ের খোঁজ পাওয়া সম্ভব ছিলো না। সে সময় আমি চারুকলার লাইব্রেরি থেকে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে প্রাচীন এক কম্পলিট ব্রিজম্যান জোগাড় করে নীলক্ষেতে থেকে ফটোকপি করে নিয়েছিলাম, সেই জিনিস আমার মাথার ওপর দিয়ে গেছে অনেকটাই (ব্রিজম্যান যথেষ্ট এডভান্সড লেভেলের বই, চারুকলায় প্রথমেই এনাটমির জন্যে কেন এইটা দেয় সেটা ভেবে পরে অবাক হয়েছি)। পরে ইন্টারনেটের কল্যাণে অসংখ্য এনাটমির ওপরে লেখা বই পরার সৌভাগ্য হয়েছে। সেগুলো পড়ে যেটা বুঝেছি তা হল, বইয়ের সব কিছু অত জরুরী না আসলে, পাতা ভরার জন্যেও অনেকে হাবিজাবি লিখে দেয়। অনেক অকারণে জটিল করে. এ সব কিছু ঘেঁটেঘুঁটে অনেক কষ্টে টুক টাক শিখলেও কেন যেন মনমত করে বুঝতে পারছিলাম না। অবশেষে সেই জিনিস মিলল এসে ২০১১ তে। সব্যসাচী মিস্ত্রী হাতে ধরে ধরে দেখালেন ব্যাপারটা কত সিম্পল। আসলে তাঁর মত কয়েকজন গুরু থাকলে আমাদের আঁকিবুকির দুনিয়া অনেক এগিয়ে যেত। যাই হোক, এবারে এনাটমি আমি আমার মত করে যা বুঝি আর কিছু কমন ভুল নিয়ে এই বারের সিরিজ টা। বলে নেয়া ভালো এই সিরিজের জন্যে দায়ী আমার কৈশোরকালীন মেন্টর, তানভীর ভাই দ্যা গ্রেইট! ভাল থাকুন তানভীর ভাই, আমার ভেতর কমিক্সের পোকা ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন সেই ১৬ বছর বয়সে, তার জন্যে থ্যাংক্স।
খুব সহজ দেখলে  মানুষের ফিগারের মূল দুটি অংশ হল তার বুকের খাঁচা, আর কোমর। ফিগার আঁকার একটা সিক্রেট হল মাথা থেকে না এঁকে আগে বডিটা- মানে এই খাঁচা আর কোমড় ঠিকমত আঁকা, তার পর সেটা থেকে মাথা হাত পা ইত্যাদি বের করা। ওপরের ড্রয়িং এ একটা মানুষের ফিগার আঁকায় সবচেয়ে কমন যেই ভুলটা হয় সেটা ঠিক করে আঁকা হয়ছে। সেটা হল পাশ থেকে দেখলে খাঁচা আর কোমর দুটো দুদিকে বেঁকে থাকে। আর সে দুটো মেরুদন্ডের সাথে একপাশে আটকে থাকে। এবং সেই মেরুদন্ড মোটেও সোজা না। মানে আপ্ন শিঁড়দাড়া সোজা করে যতি দাঁড়ান না কেন সেটা আসলে এভাবেই বেঁকে থাকে। কোন ফিগারের ড্রয়িং যতই ভাল হোক, এই ভিতরের ব্যাপারটা যদি ঠিক না থাকে তবে সেটা বাজে ড্রয়িং মনে হয়।




এবারে বাকি অংশ।খেয়াল করুন হাতটা কিন্তু একেবারে গলার থেকে নামে না, যেটা অনেকেই ভুল করেন। এটা নামে খাঁচার ওপর থেকে মাঝ বরাবর। একইভাবে পা টাও কোমরের মাঝামাঝি থেকে নামে। শরীরের প্রোপোর্শন নীয়ে এই লেভেলে কথা না বলাই ভাল। কারণ এনাটমি যিনি শিখতে চাচ্ছেন তাকে ন্যুনতম ওইটুক বুঝবার বোধ মাথায় নিয়ে আসতে হবে। এখানে মাত্র দুটো ছবি হলেও আসলে আমার মতে এই ছবি ক'টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। অন্তত আমার জন্যে সেটা তাই। এইটুকু বুঝে যদি বারবার এভাবে ফিগার এঁকে যেতে থাকেন তবে আমরা পরের পোস্টে পরের ধাপে যতে পারব।
প্রথমবারে এইটুকুই।

No comments:

Post a Comment