August 07, 2016

উন্মাদ জল রঙ প্রচ্ছদ

অনেকদিন পর জল রঙ এ ও হাতে কলমে উন্মাদ এর প্রচ্ছদ করলাম। এবারে ঈদের নাটক দেখে ভিরমি খেয়ে ক'দিন পর খাতা পেন্সিল এ একটা ড্রাফট করি, নীচে প্রথম ড্রাফট (সঙ্গত কারণেই এই ড্রাফট এর একটি খুবই যৌক্তিক অংশের ট্রান্সপারেন্সি পরে বাদ দেয়া হয়)। যাই হোক, ধাপগুলি ক্যাপশন এ বলে যাই-
এটা হল একেবারেই রাফ পেন্সিল, তবে হ্যাঁ সত্যি কথা হল এই রাফ এর আগে প্রায়
সবারই চেহারা আলাদা করে খাতায় স্টাডি করে করে একটা পর্যায়ে বুঝে নেয়া হয়েছিল

এবারে সেই রাফ পেইজ এর ওপর আরেকটা সাদা কাগজ (এখানে সেই একই খাতার আরেকটা কার্টৃজ) রেখে পেন্সিল এ আবার ক্লিন করে সবটা আঁকা হল এই ধাপটা যতটা হাল্কা করে আঁকা যায় পরের জলরং এর ক্ষেত্রে ততই ভাল। লাইট ট্রেস করার জন্যে আমি আমার উইন্ডোজ সার্ফেস টা ব্যবহার করেছি। সেই অর্থে এটাকে ডিজিটাল জল রঙ বলা যেতে পারে ;প

ইংকিং- কোন স্পেশাল প্পেন না, এটা ৫ টাকা দামের ম্যাটাডোর কালো কলম। যে কোন চায়ের দোকানেও পাবেন।
আমি আসলে ড্রয়িং শিখেছি ইকোনো ডি এক্স দিয়ে তাই কমদামী বলপেন আমার সবসময়ই পছন্দের।

ইঙ্কিং শেষ। খেয়াল করার আছে যে সব ক্যারেক্টার এর চারদিকের লাইনটা আমি আরেকটু মোটা করে ডাবল লাইন করে করে এঁকেছি।
এতে বড় দুটো ফর্ম- মানে অভিনেতাদের দলাটা আর পরিচালকের ফিগার আলাদা করে 'রিডেবল' হল।
এবারে জল রঙ। আমার হারাতে বসা প্লাস্টিক প্যালেট, আর রান্নাঘর থেকে একটা স্টিলের বাটি। ভাল কথা জল রঙ যে কম্পানীর ই কিনবেন খেয়াল রাখুন সেটা 'আরটিস্ট সিরিজ' লেখা আছে কি না। স্টুডেন্ট সিরিজ একেবারেই নতুন শেখার জন্যে। তবে আমার মতে আর্টিস্ট টা কেনাই ভাল।

রঙের ক্ষেত্রে আমি যেটা করি সেটা হল 
১.ছবির ওপরের বাম কোণা থেকে আঁকা শুরু করি, এতে করে হাতে লেগে কোন জায়গার রঙ নষ্ট হবার সম্ভাবনা থাকে না।
২. যেটার রঙ অবভিয়াস, যেমন গায়ের রঙ আমি বার্ন্ট সিয়েনা, বা হলুদ দেবই। সেটা আগে করা। 

মোটামুটি ভাবে শেষ করা। অনেকদিন পর করায় যেটা হল, রঙ মাখিয়ে গেছে অনেক জায়গায়,
আর রঙ করার আগে কেমন দ্বিধা লাগছিলো কোন রঙ কোথায় দেব সেটা।


ঠিক করেছি আরো কিছু কাজ আবার জল রঙ এ করব।






4 comments: