June 20, 2012

কেন সুপার হিরো কনসেপ্ট আমাদের সাথে 'যায় না'


কমিকবুকের কাজ চলছে, আর সেটা করতে গিয়ে কিছু অদ্ভূত সমস্যার মুখে পড়তে হচ্ছে আমাদের। যেমন- আমাদের 'সুপারহিরো' কেমন হবে?ল্যাঙ্গট পড়া কাঁধে লাল পর্দা উড়ানী কোন বাঙ্গাল সাঁই সুঁই করে 'সেভ দ্যা ওয়ার্ল্ড' করে বেড়াচ্ছে- এমন একটা দৃশ্য কেন যেন হাসির উদ্রেক করে। সত্যি, এমন কিছু দাঁড়া করাবার চেষ্টা কিন্তু কম করা হয়নি। কিন্তু সেটা ক্লাউনি ইমেজ থেকে বের হতে পারেনি আজো। সেটা কেন হয়নি বা কেন হচ্ছে না তা ভাবতে গিয়ে আমরা কিছু চমকপ্রদ উপলব্ধির মধ্য দিয়ে গেছি। আমরা প্রথমেই আমাদের বৃহত ভারতবর্ষের 'সুপারহিরো' দের নাম মনে করার চেষ্টা করি,


সিদ্ধার্থ গৌতম (বুদ্ধ)
লালন ফকির
বড়ু চন্ডীদাস
ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
মহাত্মা গান্ধী
অতীশ দীপংকর
শাহজালাল রঃ
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
কাজী নজরুল ইসলাম

(নাগাড়ে যেসব নাম মন এল তা-ই লেখা হয়েছে, পাঠকেরা যে যার মনের মত আরো যোগ করে নিতে পারেন)
খেয়াল করুন এঁরা কেউই 'একশন হিরো' না। ইউরোপ আমেরিকার সাথে আমাদের এখানে একটা বড় পার্থক্য আছে। ওঁদের সভ্যতা গড়ে উঠেছে পেশীর জোরে, সেই সাথে প্রযুক্তির কর্কশ শব্দে। আর আমাদের এইদিকে ব্যাপারটায় সবসময় একটা আধ্যাত্মিক, যাদুকরী, মায়াবী শক্তির ব্যাপার ছিল। এখানের সুপারহিরোরা তাঁদের 'আইডিয়া'র জোরে অতিমানব। গায়ের জোরে নন। অপরদিকে যে সব বৃটিশ আমেরিকান সুপারহিরো আমরা দেখি তার বেশীরভাগই ভয়ানক শারীরিক শক্তি কেন্দ্রিক পেশীবহুল আর গেজেট নির্ভর। একটা বড় অংশের জন্ম কোন এক 'বৈজ্ঞানিক' দূর্ঘটনায়। অথবা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে মিত্র বাহিনীর সেভিয়র হিসবে। এমনকী অনেকাংশেই সেটা পলিটিক্যাল কারণে সৃষ্টি! তাই ইউরোপ আমেরিকানদের লোহা ইস্পাত আর মিগ বিমানের পাশে এখন আয়রন ম্যান উড়ে যাওয়াটা যেমন স্বাভাবিক লাগে আমাদের খালবিলের বাংলাদেশে সেটা বরং হাস্যকরই লাগবে। ভাবুনতো ঢাকার রাস্তায় প্যান্টের ওপর লাল ল্যাঙ্গট পড়ে এক সুপারহিরো হেঁটে যাচ্ছে। 


এবার প্রশ্ন হল আমাদের এখনকার হিরো (সুপার হবার দরকার নাই) তাহলে কেমন হবে? আমরা পড়াশোনা করে দেখতে পাই ওপরে আমাদের হিরো হিসেবে যাদের নাম যাদের নাম লেখা হল তাদের অনেকেই কিন্তু গায়ে গতরে মারামারিও করেছেন। শাহজালাল (রঃ), আর লালন ফকির এই দু'জনেই 'সাধারণ' মানুষের হয়ে লাঠি হাতে নিয়েছেন। তবে এঁদের মূল হাতিয়ার ছিল জীবনদর্শন, মানবদর্শন। তার মানে এখানে হিরো হতে হলে আপনাকে দার্শনিক হতে হবে- অন্ততঃ আপনার কাজের পেছনে একটা পরিপূর্ণ দর্শন থাকতে হবে। খেয়াল করে দেখবেন পশ্চিমা সুপারহিরোদের খুব কমই এমন দর্শন আছে। সেখানে সবসময় এক উন্মাদ ধরনের ভিলেন হাজির হয়, যার উদ্দেশ্য আমেরিকা  (মানে কিনা পৃথিবী, আমেরিকানদের কাছে যুক্তরাষ্ট্রকেই পৃথিবীর সমার্থক বোঝানো হয়) দখল। মানে RULE THE WORLD, পাওয়ার পাফ গার্লস সিরিজের মোজোজোজোর গানের মত- Everybody Wants to rule the world. আর তখন 'হিরু'এসে একটা Save the world করে থাকে। এই প্লটটার পেছনে কাজ করছে সেই  আড়াই হাজার বছর আগে লেখা এরিস্টটলের সাম্রাজ্য টিকানোর একটা কৌশল- একটা কৃত্রিম শত্রু বানিয়ে জনগনকে বোঝাও যে ওই ভয়ানক শত্রুকে ঠেকানোর শক্তি একমাত্র তোমার মত অত্যাচারী শাসকেরই আছে!
যাই হোক, ভিন্ন আলোচনায় চলে যাচ্ছি, লেখার উদ্দেশ্য ছিল আমাদের সুপারহিরো কেন নাই, বা কেন এখানে 'ওভাবে' ভাবা যায় না। আমার ব্যক্তিগত মতটাই এখানে বলে যাচ্ছি। বর্তমানে একাধিক কমিকবুকের কাজ করে যাচ্ছি বলে এই সমস্যাটা আবার সামনে আসায় এই ভাবনা। আমার মতে এখানে কমিকবুক হিরোরা যা হতে পারে তা এই রকম


১। যাদুকরী, ঐন্দ্রজালিক ক্ষমতা- ম্যান্ড্রেক অনেকটা যেমন

২। পেশী শক্তিতেই সে চলে কিন্তু সেটা একটা দারুণ দর্শন মনে নিয়ে- অরণ্যদেব- আমার মতে সেরা কমিকবুক ডিজাইন

৩। আধিভৌতিক, অতিপ্রাকৃত জগতের জ্ঞান আছে এমন- হেলবয় (মুগ্ধ হয়ে মাইক মিগ্নোলার একগাদা হেল্বয় পড়লাম)

৪। কুসংস্কার ভেঙ্গে দেয় টাইপ কেউ- মিসির আলী?

আমরা এই কয়েকটা টাইপের ওপর আমাদের হিরোগুলিকে দাঁড়া করাতে চাইছি। আর সেই সাথে বিরাট ইন্সপিরেশনাল জায়গা নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে জাপানিজ মাঙ্গা ইন্ডাস্ট্রি। ওসামু তেযুকা, মিয়াযাকি থেকে হালের কেইজি নাকাযাওয়া এদখিয়ে দিচ্ছেন কিভাবে গল্প বলতে হয়। আমার মতে জাপান থেকে বরং আমাদের বেশী শিখবার আছে। মাথা ধরানি, হাড় জ্বালানি মার্ভেল ডিসির টাইট কম্পোজিশনে পেশীর দলা সহ একদল মারকুটে গোলায়াথের লাফালাফির চেয়ে আমার কাছে তেজুকা অনেক আরামপ্রদ।

যাই হোক, অনেকেই বাংলাদেশের সুপারহিরো বানাতে গিয়ে ধরা খেয়েছেন (কার্টুনিস্ট শাহরিয়ার শরীফ ছাড়া) । সেই ধরা খাবার কারণটা মনে হয় কিছুটা বলতে পেরেছি। তবে এর সবই ব্যর্থ হয়ে যাবে যদি আমরা এর উল্টোদকে গিয়ে কিছু করে দেখাতে না পারি। 
দেখা যাক কি হয়



26 comments:

  1. onek shiklam,ekta kaz krote koto research korte hoy.sotti joss sir..

    ReplyDelete
  2. onek shiklam,ekta kaz krote koto research korte hoy.sotti joss sir..

    ReplyDelete
  3. bangla comics ageo kisu publish hoislo bt amr kase mone hoasilo shariar vaier Laily comicsta bisso maner. kintu janina Bangla desher bangla comics keno khub ekta publish hoyna. amader moto comics pagolder moner kosto etodin por holeo bujhte parsen ei jonno apnake o Dhaka comics er sokolke janai antorik suvokamona.

    ReplyDelete
  4. apnar blog aro onek agei pora uchit silo..tahole hoyto vul poth guloy jetam na :)

    ReplyDelete
  5. আমাদের জনপপ্রিয় সিনেমার যে ধারা, তাতে আবার হিরো চরিত্র জনপ্রিয়ই। একা নায়ক খালি হাতে অনেকজন গুন্ডাকে ধরাশায়ী করে দিচ্ছেন, বিপদে পড়লেও শেষমেষ জিতছেনই, এমনটাই আমাদের জনপ্রিয় সিনেমার কাছে চাহিদা।রূপকথার গল্পেও হিরোরা জনপ্রিয়। তারাও সর্ববিদ্যা পারদর্শী।

    ReplyDelete
    Replies
    1. true. আর সেই ক্ষেত্রে তামিল হিরোরা।বরং বেশী কাছের। আসলে দুইটার ব্লেন্ড দরকার

      Delete
  6. This comment has been removed by the author.

    ReplyDelete
  7. অসাধারণ দৃষ্টিভঙ্গি, লাইনগুলো মনে গেঁথে গেল।


    "ইউরোপ আমেরিকার সাথে আমাদের এখানে একটা বড় পার্থক্য আছে। ওঁদের সভ্যতা গড়ে উঠেছে পেশীর জোরে, সেই সাথে প্রযুক্তির কর্কশ শব্দে।"
    "খেয়াল করে দেখবেন পশ্চিমা সুপারহিরোদের খুব কমই এমন দর্শন আছে। সেখানে সবসময় এক উন্মাদ ধরনের ভিলেন হাজির হয়, যার উদ্দেশ্য আমেরিকা (মানে কিনা পৃথিবী, আমেরিকানদের কাছে যুক্তরাষ্ট্রকেই পৃথিবীর সমার্থক বোঝানো হয়) দখল। মানে RULE THE WORLD, পাওয়ার পাফ গার্লস সিরিজের মোজোজোজোর গানের মত- Everybody Wants to rule the world. আর তখন 'হিরু'এসে একটা Save the world করে থাকে। এই প্লটটার পেছনে কাজ করছে সেই আড়াই হাজার বছর আগে লেখা এরিস্টটলের সাম্রাজ্য টিকানোর একটা কৌশল- একটা কৃত্রিম শত্রু বানিয়ে জনগনকে বোঝাও যে ওই ভয়ানক শত্রুকে ঠেকানোর শক্তি একমাত্র তোমার মত অত্যাচারী শাসকেরই আছে!"


    কার্টুনিস্টের সাথে আপনি একজন ভাল দার্শনিকও বটে।

    ReplyDelete
  8. জাপানী মাংগার প্রসঙ্গ তুলেছেন দেখে ভাল লাগল। অধিকাংশ মাংগার শেকড় কিন্তু জাপানী সংস্কৃতিতে গভীর ভাবে প্রোথিত। নিজস্ব লোককাহিনী আর উপকথা তাদের প্রেরণার উৎস। এর পাশাপাশি চীনা কমিক্সের একটা বড় অংশ জুড়ে আছে monkey kingএর উপাখ্যান, এটাও চীনা উপকথার ছায়া অবলম্বনে সৃষ্ট। পূর্ব আর পশ্চিমের ফারাক যোজনের; দর্শনের, সংস্কৃতির আর মূল্যবোধের। সবকিছু তাই পূর্বে পশ্চিমের মতন হয়না, হওয়া উচিতও নয়। বাংলায় সুপার হিরোর ব্যাপারটা কিছুটা বাংলায় হেভি মেটাল এর মত। এক বাংলাদেশি হেভি মেটাল ব্যান্ড এর ভোকালকে তাদের ইংরেজিতে গান গাইবার কারণ জিজ্ঞাসে জানা গেল বাংলায় হেভি মেটাল ভাবাবেগ আনা মুশকিল। তাই তাদের ভরসা ইংরেজি।

    মেহেদী ভাইকে ধন্যবাদ তার লেখার জন্য। বিষয়বস্তু অনেকের কাছে জরুরী না মনে হলেও আমার কাছে মনে হয়েছে এর নৃতাত্ত্বিক মূল্য আছে। সংস্কৃতির এই দ্বন্দ্ব কে নিরীক্ষণ ও বিশ্লেষণের জন্য কমিক্সও একটা ক্ষেত্র হতে পারে তা আলোকপাতের জন্য মেহেদী ভাই কে সাধুবাদ না দিয়ে পারলাম না। লেখাটাকে পরিবর্ধিত করে একটা আর্টিকাল লিখতে পারেন। চিন্তার খোরাক হবে কমিক্স পিপাসুদের পাশাপাশি অন্য সবারও।

    রীশাম শাহাব
    ঢাকা

    ReplyDelete
    Replies
    1. অসংখ্য ধন্যবাদ দারুণ মন্তব্যের জন্যে। আসলে এই বিষয় নিয়ে আমাদের আরো কথাবার্তা বাড়ানো উচিত। বিষয়বস্তু আসলে জরুরী-ই। একেকটা জেনারেশনের জন্যে এই ছোটবেলার তুচ্ছ মনে হওয়া হিরোরাই তার ভবিষ্যতের চরিত্র ঠিক করে দেয়। বাছারা এদের দেখেই শেখে। তাই এটা জরুরী বটেই।

      Delete
  9. সুন্দর বিশ্লেষণ! চিন্তার সুতাটা সুন্দর!
    "তবে এর সবই ব্যর্থ হয়ে যাবে যদি আমরা এর উল্টোদকে গিয়ে কিছু করে দেখাতে না পারি।
    দেখা যাক কি হয়"

    কিছু একটা যে বেরোবে, সেটা বোঝাই যাচ্ছে।

    আমি এই বিষয়ে অজ্ঞ, নিজে কার্টুন পছন্দ করি, সেই দৃষ্টিকোণ থেকে বলছি, ভারতবর্ষে জাংগলবুক বোধহয় ভালো একটা উদাহরণ চরিত্র হিসেবে। মুগলি কিন্তু ন্যাঙট পরাই, উদল গায়ের একজন, জঙ্গলে টারজানের মতো, তবু ভারতে মানিয়ে গেছে। মানিয়েছে বাংলাদেশেও।
    সার্কভুক্ত দেশগুলোতে মীনা, রাজু, মিঠু কিন্তু খুবই 'আপন' মনে হয় সবার। দেশীয়ই মনে হয় (যদিও মোস্তফা মনোয়ার স্যারের প্রস্তাবিত মীনা চরিত্রটি শেষ পর্যন্ত স্থান পায়নি)। টোকাই হয়তো সুপার হিরো না, কিন্তু বেশ 'আমাদের'ই।

    একটা কাজ করা যাক না, সুপার হিরোদেরকে আমরা অন্য জায়গায় খুঁজে দেখি। একজন রিক্সাচালক, যে কিনা বাস, ট্রাক, প্রাইভেট গাড়ি (প্লাস্টিক?) আর ট্রাফিক পুলিশের কাছে জব্দ হচ্ছে, সে কোনো উপায় খুঁজে সেখানটায় একজন হিরো হয়ে গেল। আপনি বলছিলেন, আমাদের হিরোরা মনোঃস্তাত্ত্বিক যোদ্ধা (আমি নিজেও মিসির আলী'র চরম ভক্ত), তাহলে আমাদের হিরোদেরকে চরম বুদ্ধিবৃত্তিক স্ক্রিপ্ট দিয়ে সাজাতে হবে। তাই সুপার হিরোদের শুধু কিম্ভুত অ্যাটায়ার আর ঢিশুম ঢিশুম স্ক্রিপ্ট দিয়ে যে আমরা পারছি না, সেটা তো আপনি দেখিয়েই দিলেন, আমাদের তাই হয়তো স্ক্রিপ্ট নিয়েই বেশি ভাবতে হবে। বাংলার জিযাস হবেন শাহজালাল [রহ.], যেমনটা ভারতে হচ্ছে 'হনুমান' দেবতাকে নিয়ে।

    কী বলতে গিয়ে কী সব দীর্ঘ প্যাঁচালি লিখে ফেললাম। মাফ করবেন। লেখা ভালো লেগেছে। যে কিছু একটা বেরোতে চলেছে, তার জন্য অগ্রিম শুভ কামনা।

    ReplyDelete
    Replies
    1. সুন্দর ভাবনা, আসলে এটাই এখন মূল কাজ, ভাবা শুরু করা। আমি কিন্তু এই লেখাটা বেশ আগে লিখেছি। এর পরে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছি। এই লিংক এ গেলে তার একটা ধারনা পাবেন www.dhakacomics.com
      আমার নিজেরই মিসির আলি টাইপ একটা চরিত্র আছে কমিক্স এর। ঘুরে দেখে আসতে পারেন। :)

      Delete
  10. Ye...chhoto mukhe boro kotha bolchhi jodio. Kintu Amar kachhe ekta superhero concept achhe. Jeta manano jay amader deshiyo haler shathe.

    1.normal dress up ER upor kono symbol....karon bangladeshe manush chailei spideyr Moto jhakanaka elastic suit banate parena.

    2. Normal villain. Orthat Tara Hobe oi American der Moto peshi jorer villain. But supernatural kisu thakbena.

    3.mangar Moto plot. Mane jeta khub simple theke shuru. (apni e likhechhen)


    Shoja kotha
    Amader deshe
    Superhero shomvob...kintu marvel dc theke joto kom copy kora jay ba idea neya jay toto better.


    Wow!!! Birat high thought alap korc to!! :p

    ReplyDelete
    Replies
    1. exactly এটাই ছিলো পয়েন্ট। যে আমাদের হিরো আর ভিলেইন হবে আমাদের মত।

      Delete
  11. Amder indian subcontinent er pran er comics kintu ekhetre onek safollo aneche...chacha choudhury,billu,pinki....amader pirichito sadharon manuch,chele meye ba pirichito rastar kono manush o je superhero hote paare ei dharona anra pran er comics theke pai...ejonno mone kori amder khahini gula o amder culture er sathe rooted hoya bhalo...cartoon style ej hote paare,graphics ek hote pare but story te shokiyota thaka uchit...manga ba western super hero r concept na giye desiyo sokiyo story niye kaaj kora uchit...ekhane folklore story ba tokai er mito sadharon kono story aste pare..

    ReplyDelete
    Replies
    1. বটে- তবে খেয়াল করার বিষয় চাচা চৌধুরী, বা বিল্লু পিংকী কিন্তু সুপার হিরো না। এরা একটু ফানি- গ্যাগ বেইজড চরিত্র। অরণ্যদেব মার্কা চরিত্র আমাদের এখানে বরং হবার সম্ভাবনা আছে, কিন্তু সুপারম্যান? হয়ত না।

      Delete
  12. just want to add a few in favor of your ideas ... from HA creations, the people who could talk to trees or fishes and cows can be portrayed as a superhero also. their power is the deep understanding of human psychology and complex social structure. using that, they could create a butterfly effect to "make others do" what they want to be done.

    this "deep understanding of the nature and the human being" is common for all from misir ali to shahjalal or khona. they all know the nature well enough to decide how to build home or cultivate or when to fight against a stronger army who has arrows made of fire ...

    but, one big problem is, urban kids (who may be the primary consumer of 'costly' comic books), have no idea of 'nature' or 'complex social structure'. so, they cannot relate themselves with the above context. instead, u can consider a small group of 'apartment kids' who can meet and play only for few minutes a day ... their "group problems" are like: daroan mama said they cannot play cricket from tomorrow because, some kabir uncle's car got scratched ... but obviously the "good kids" did not make the harm ... so the "hero kid" comes forward, find the mystry as well as manage mr. kabir to permit them to play again. or another scenario ... one kid broke his bulley big brother's playstation. then the 'hero' reads a lot of electronics stuff, turns into a geek overnight and repair it before the big brother could notice ...

    i know, talking big is very easy but working for real is not. actually i became very excited at the idea of your searching for local heros ... thats why i tried to say whatever came up to my mind ...

    ReplyDelete
  13. Dear Mehdi Bhai,
    I don't know if you will remember, but we met last year at the Graphicdemia conference at ULAB and asked me what would I think a Bangladeshi super-hero could be (I was the one talking about super-heroes and the city).

    Back then I didn't have an answer for you, but I recently read a series that DC comics put out that made me think of your question. It was called "We are Robin" and it is basically about teenagers across Gotham City calling themselves Robin and trying to protect the city while Batman was missing. After reading that series, it reminded me of your question (and also reminded me of a similar concept in another series "Global Frequency").

    The idea is something that can be translated into Bangladesh/Dhaka scenario (you can even bring some super powers into it through various means, but since you have said that we, culturally speaking, seem to resonate with religious/philosophical connotations, it could be similar to the Middle Eastern comic "The 99") with the youth rising up and taking down larger than life villains.

    Just a thought, this was an interesting read and am glad you shared it on Facebook.

    ReplyDelete
    Replies
    1. Oh, great to see you here! thanks for the nice (and belated) answer :D
      you are right. In fact right now we are seriously thinking about developing heroes of our own. I read the 'We are Robin' series too. Yes that could be a good idea too. I also have followed the Invincible series by Ottly and found that how beautifully they managed to justify all superpower's background. Let's try our own.
      Thanks for being with.

      Delete