October 24, 2016

আয়নাবাজী প্রচ্ছদ


উন্মাদ এর পরের সংখ্যার জন্যে করা প্রচ্ছদ। অমিতাভ রেজা বিজ্ঞাপন চক্রের থেকে বের হয়ে একটা সিনেমা শেষ মেশ শেষ করতে পেরেছেন সেজন্যে তাঁকে সাধুবাদ। এই দুষ্ট চক্রে কত সম্ভাবনা যে শেষ হয়ে গেল। 
আহসান ভাই দেখে এসে বললেন, ভালো হইসে, দেইখো- আর তার পরেই এটা নিয়ে একটা প্রচ্ছদ করা যায় কি না জিজ্ঞেস করলেন। আওয়ামী লীগ এর কাউন্সিল, রামপাল ইত্যাদি বিষয় নিয়ে একাধিক কার্টুন 'বিশেষ কারণ' এ ছাপা না হওয়ায় সেই ফাঁকতাল এ অন্য সব কাজ এগোচ্ছি। পলিটিক্যাল কার্টুনের জন্যে বাজে দিন যাচ্ছে, জন এ. লেন্ট ক'দিন আগে বলে গেলেন 
সেলফ সেন্সর ইজ দ্যা ওয়ার্স কাইন্ড অফ সেন্সরশিপ।
কথা সত্য। কোন একদিন আমার অপ্রকাশিত কার্টূন সমগ্র বের হবে আশা করি।


October 16, 2016

ড. লেন্ট

ড.লেন্ট এর সাথে ১৩/১০/১৬
পৃথিবী বিখ্যাত কার্টুন ও কমিক্স বিশেষজ্ঞ INTERNATIONAL JOURNAL OF COMIC ART এর সম্পাদক ডঃ জন এ লেন্ট এখন বাংলাদেশে।উনি এর আগে ১৯৯৩ সালে একবার বাংলাদেশে এসেছিলেন। সে সময় তিনি উন্মাদ অফিসে এসেছিলেন, আহসান হাবীব ভাই কর্তৃক ওনার একটা সাক্ষাতকার ও উন্মাদ এ ছাপা হয়। অশীতিপর এই ভদ্রলোক সারা দুনিয়ার কমিক্স ও কার্টুন নিয়ে আঁকলেও তাঁর মূল আগ্রহ এশিয়ার ওপর। তাঁর কিছু বইয়ের নাম দেয়া যাক-

  • Asina comics (2015)
  • The Asian Film Industry
  • Comic Art in Africa, Asia, Australia, and Latin America Through 2000: An International Bibliography
  • Women and Mass Communications: An International Annotated Bibliography
  • Bibliography of Cuban Mass Communications
  • Cartooning in Africa
  • Comic Art of the United States Through 2000, Animation and Cartoons

এমন মোট ৫৫ টা বই, আর সেই সাথে শতাধিক আর্টিকেল। কার্টুন কমিক্স এর দুনিয়ায় হিস্টরি লেখার ক্ষেত্রে মোটামুটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (দাড়িগোঁফ এও মিল আছে)।

এই দিকপাল এর সাথে আমার প্রথম যোগাযোগ হয় ইমেইল এ, কোন এক কার্টুন সাইট ঘাঁটতে গিয়ে দেখি সেখানে ''ASIAN COMICS'' নামের একটা বই বের হচ্ছে। সেটার সূচীতে গিয়ে খুঁজে দেখি বাংলাদেশ নাই! আমার মন খারাপ হল, ভদ্রলোক বাংলাদেশ ঘুরে গেছেন, অন্তত দেশটার নাম থাকা উচিত ছিল। আমি মোটামুটি অভিমান ভরা একটা মেইল করে দিলাম যে বাংলাদেশ ছাড়া এশিয়ান কমিক্স করাটা ঠিক হয় নি। পরদিনই মেইল এর জবাব এল। (সেটা নিয়ে আগে এখানে বলেছিলাম)। আসলে বইটায় একটা চ্যাপ্টার ঠিকই ছিল ছোট করে। আর তিনি আরো জানালেন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে যদি আমি লিখতে চাই সেটা বরং বেশী কাজের হবে, এর আগে নাকি একাদিক ব্যক্তিকে উনি বলেছিলেন তাঁর IJOCA তে লিখতে, কিন্তু কেউ লেখা দেয় নি। উলটা ধরা খেয়ে এবার লেখা শুরু করলাম, বাংলাদেশের কার্টুন আর উন্মাদ মিলিয়ে একটা একাডেমিক টাইপ আর্টিকেল। সেটার ইংরেজী ও ভাষা ঠিকঠাক করেদ দিলেন প্রথমে আমার বড়ো দুলাভাই, আরেক আমেরিকান ডঃ মাশুক সালেহীন, এর পরে নিউ এইজ এর ডেপুটি এডিটর ওয়ান এন্ড অনলি আক্কাস ভাই। লেন্ট আমার আর্টিকেল পেয়ে মুগ্ধ, এত ভাল ইংরেজী। আমি বললাম- হেহে ওই আর কি। যাই হোক সেই আর্টিকেল ছাপাও হল, এবং কার্টুনিস্ট আসিফ কিছুদিন আগে নীলক্ষেতের চিপা থেকে তার একটা কপিও জোগাড় করে উন্মাদ এ দিয়ে গেল।

এর প্রায় এক বছর পর লেন্ট মেইল দিলেন- উনি বাংলাদেশে আসবেন, দিন তারিখ ঠিক নেই, তবে এলে উনি এখানের রাজনৈতিক কার্টুন আঁকিয়েদের ইন্টারভিউ করবেন।এশিয়ার পলিটিক্যাল কার্টুনিস্ট দের নিয়ে তিনি একটা বই লিখবেন। আসলে আমি যেন কার্টুনিস্ট দের ঠিকানা জোগাড়যন্ত্র করে দেই। ততদিনে তিনি গুগল টুগল করে আমার কাজকর্ম নিয়ে মোটামুটি জেনে গেছেন। আমি একপায়ে খাড়া। এই মানুষটার সাথে দেখা হওয়া একটা বিরাট সৌভাগ্যের ব্যপার। 

অবশেষে ডঃ লেন্ট এখন ঢাকায়। তাঁর সাথে দেখা করতে গিয়ে মোটামুটি সারপ্রাইজড হলাম, কারণ তিনি আমার জন্যে তাঁর লেখা এশিয়ান কমিক্স, IJOCA এর আমার লেখা সহ কপিটা আর সেইসাথে মালয়শিয়ান কিংবদন্তী কার্টুনিস্ট ZUNAR স্বাক্ষরিত তাঁর কার্টুন সংকলন বইটা নিয়ে এসেছেন। এশিয়ান কমিক্স এর পাতায় আমার উদ্দেশ্যে লিখে দেয়া কথাগুলি এখানে তুলে দেবার লোভ সামলানো গেলো না।
:) হ্যাপি কার্টুন।
আমার গিফট :D ফ্রম জন এ লেন্ট
জুনার এর সাইন করা বই !
1993 সালের র'নবী স্যার

এশিয়ান কমিক্স বই এ বাংলাদেশ চ্যাপ্টার

এশিয়ান কমিক্স এর উৎসর্গ পাতা

উন্মাদ :)
:) শেষ চমক এশিয়ান কমিক্স এর মধ্যে ঢাকা কমিক্স