January 16, 2012

অহংকারী পৃথিবীর গল্প

ধ্রুব এষের লেখা ছোটোদের একটা বই আঁকি, এই বইমেলায় আসবে। করতে খবর হয়ে যাচ্ছে...


January 10, 2012

আমার বিলাই ধইরা কিলাই

আমার একটা বিড়াল আছে যে জন্মুসূত্রে আমার বাসার নাগরিক। এবং সে বিশ্বাস করে যে, আমরা তাকে পুষি। এবং সে আরো বিশ্বাস করে যে, আমি তার মনিব। (অহিংস ও সহিংস দুইভাবেই তার এই ভুল ভাঙ্গানোর চেষ্টা করা হয়েছে- কাজ হয়নি) তার দিনের তিনভাগের দুইভাগ সময় সে ঠিক যেই সব জায়গায় ঘুমালে আমার মেজাজ তিরিক্ষি হবে (আমার ব্যাগ, আমি না থাকামাত্রই আমার চেয়ার, আমার স্যুয়েটার, কম্বল, সর্বত্র সে তার পৌনঃপুনিক ভাগের মত শেষ না হতে চাওয়া পাতাঝরা লোমের নিদর্শন ছড়িয়ে যায়) সে সব জায়গায় এমন ভাবে ঘুমায় যেন আমি-ই তার আশ্রিত। এবং বাকি একভাগ সময় সে পৃথিবীর সর্বোচচ বিরক্তিকর মিয়াঁও, ইঁয়্যাও, ঙ্গাঁওও এমন কী মাঝে মাঝে 'ঘ্র্যাঁও' ধরণের শব্দের চর্চা করে । ত্যাক্ত হয়ে কিছু খাবার দিলে সেটা কিছুক্ষণের জন্যে থামে। সবশেষে রাত ঘনালে সে পাড়ায় মাস্তানি করতে বের হয়। তার আগে আমার পড়ার টেবিলে উঠে কতভাবে সে তার শরীর বাঁকাতে পারে তার একটা এক্রোব্যাটিক শো করে, পন্ডিতমশাইয়ের মত-ক্ষণে হেথায়, ক্ষণে হোথায়- চুলকায়। 

সেদিন সে সব ভঙ্গীর কিছু খাতায় টুকে নিয়েছিলাম, তারই কিছু-

রস+আলো প্রচ্ছদ ২০১২

গত দুই মাসে আমার আঁকাআঁকির পদ্ধতি পাল্টেছে। এখন প্রায় পুরোটাই ডিজিটালি করা হচ্ছে। আঁকতে আগ্রহী বা এঁকে যাচ্ছেন এমন অনেকেই আমাকে মাঝে মাঝে প্রশ্ন করেন আমি ফটোশপ কত তে কাজ করি, বা আমার কি সিনটিক আছে কি না। আসলে আর্টওয়ার্কের ক্ষেত্রে এগুলো নিতান্তই তুচ্ছ বিষয়,এ সবই আসলে কিছু 'টুল' পৃথিবীর সেরা টুল নিয়ে বসে থাকলেও যদি আঁকতে না জানেন তাহলে লাভ নেই আর জানলে একটা বলপেন দিয়েই সব করা যায় (সেদিন পৃথিবী বিখ্যাত ক্যারিক্যাচারিস্ট JASON SEILER এর একটা ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখলাম, সেটাতে দেখলাম উনি শুধু একটা বলপেনন দিয়েই আঁকেন, আঁকতে আঁকতে তিনি বলছেন- this tool is really nice, u can even create different grades just with your pressure control) খাতা কলমে আঁকার সাথে ডিজিটালের পার্থক্য আমার কাছে লাগে মূলতঃ দুইটা জায়গায়-
১। এটা অনেক দ্রুত 
২। এতে একই কাজের ওপর অনেক এক্স পেরিমেন্ট করা যায় মুল আর্টওয়ার্ক ঠিক রেখেই।

(আর হ্যাঁ অতি অবশ্যই- আনডু) এ ছাড়া বাকি সব কিন্তু একই। যাই হোক, ইদানীং যেভাবে আঁকছি তা শেয়ার করার জন্যে নিচের স্ক্রিনশটগুলি তুলে দিলাম। এখন দুইটা আলাদা সফটোয়্যার এ কাজ করছি। MANGASTUDIO EX4- এটাতে ড্রয়িং করি, আর PHOTOSHOP CS এ কালার


মাঙ্গাস্টুডিও- পেনসিলিং শুরু, একশন লাইন

আঁকা শুরু- থাম্বনেইলিং




মোটামুটিভাবে রাফ লাইন ঠিক করা
শিয়াল স্টাডি- এই কাজটা আগে করতাম না। কিন্তু এটা ছাড়া কাজ করা ঠিক না, যা আঁকছি তা আসলে দেখতে কেমন গুগল থাকতে সেটা না দেখাটা বোকামী

অন্য লেয়ার এ ইংকিং শুরু- মাঙ্গার নিব পেনগুলি অসাধারণ!


ইংকিং মোটামুটি ডান
কুমীরের বাচচা কালারিং (গুগলিং করে রিয়েল কুমীরের বাচচা থেকে রঙ নিয়ে আঁকা, খেয়াল করুন রঙ্গটা কিন্তু সবুজাভ দেখালেও আসলে হউদের সাথে গ্রে'র মিশ্রণ)

মোটামুটি ডান


January 08, 2012

আঁকান্তিস স্কেচ বুকিং


রমনা পার্ক এ গিয়েছিলাম আঁআন্তিসে স্কেচ সেশন এ , সেখান থেকে আঁকা, এই স্কেচিং সেশন খুবঅই জমে উঠেছে ইদানীং। রীতিমতন উপভোগ করছি! আশা করি এইবার এই সেশন থেকে আরো কিছু কমপ্লিট কাজ নামানো যাবে।